TACE

ট্রান্সআর্টে‌রিয়াল কেমোএম্বো‌লাইজেশন (TACE) একটি নির্দিষ্ট ধরনের কেমোএম্বো‌লাইজেশন যা লিভারের ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য হেপাটিক ধমনীকে বাধা দেয়। এই চিকিৎসা পদ্ধতি এইচসিসি, হেপাটোসেলুলার কার্সিনোমা (এইচসিসি), সবচেয়ে সাধারণ ধরনের প্রাথমিক লিভার ক্যান্সারের চিকিৎসায় উপশমকারী চিকিৎসা পদ্ধতি হিসাবে পরিচিত। এই পদ্ধতি রোগীদের শুধুমাত্র কয়েক মাস বা কয়েক বছর আয়ু বৃদ্ধি করে, কারণ সম্পূর্ণভাবে এই ধরনের রোগ নিরাময় করা সম্ভব নয়, এবং রোগীর জন্য প্রতিস্থাপনই হল একমাত্র বিকল্প। ভারতের ম্যাক্স হাসপাতাল খুব সাশ্রয়ী মূল্যে TACE চিকিৎসা পদ্ধতি সরবরাহ করে থাকে। TACE চিকিৎসা পদ্ধতিতে, এম্বোলাইজেশনের দ্বারা টিউমারগুলিতে রক্ত ​​সরবরাহ অবরুদ্ধ করা হয়, এবং তারপরে ক্ষতিকর টিউমারগুলিতে কেমোথেরাপি সরবরাহ করা হয় যাতে তারা রক্তের মাধ্যমে রোগীর দেহের অন্যান্য অংশে ছড়িয়ে পড়তে না পারে। এই প্রক্রিয়ার মধ্যে হেপাটিক ধমনীর মাধ্যমে লিভারে কেমোথেরাপির ওষুধ সরবরাহ করা হয় এবং তারপরে ওষুধগুলি সঠিকভাবে কাজ করার জন্য ধমনীকে অবরুদ্ধ করা হয়। এর পরিবর্তে, লিভার পোর্টাল শিরা থেকে রক্ত ​​পায়। এই চিকিৎসা পদ্ধতি টিউমারের আকারকে সঙ্কুচিত করে এবং রোগীর জীবনকালকে ১০ থেকে ১৪ মাস পর্যন্ত বাড়িয়ে দিতে পারে।

লক্ষণ

অনেকগুলি পরিস্থিতি বা লক্ষণ রয়েছে যেগুলি সম্পর্কে অবশ্যই জানা দরকার:
  1. লিভার বড় হওয়া
  2. জন্ডিস এবং খাদ্যনালীতে ভারিসেল ব্লিডিং
  3. তলপেটের কাছে তরল জমে যাওয়া
  4. জ্বর এবং হেপাটাইটিস বি বা সি সনাক্তকরণ
  5. কোন কারন ছাড়াই রোগীদের ওজন হ্রাস
  6. লিভার সিরোসিস
  7. পারিবারিক ইতিহাসও এইচসিসির (HCC) লক্ষণ হতে পারে
  8. পেটে ব্যথা
  9. অন্তর্নিহিত পোর্টাল হাইপারটেনশন
  10. উইলসন ডিজিজ

মেডিকেল টেস্ট এবং ডায়াগনোসিস

TACE নির্ধারণ করার আগে, চিকিৎসকদের একটি দল যার মধ্যে সার্জন, লিভার বিশেষজ্ঞ, ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ, এবং ইন্টারভেনশনাল রেডিওলজিস্ট থাকেন যারা রোগীর অবস্থা পর্যালোচনা করেন এবং পরীক্ষা করবেন:
  1. রোগীর পারিবারিক ইতিহাস এবং অতীতে কোন শারীরিক সমস্যার ইতিহাস পর্যালোচনা করা।
  2. 2D ইকো আল্ট্রাসাউন্ড এবং রোগীর ইসিজি করা হয়।
  3. পেটের সিটি স্ক্যান এবং এমআরআই স্ক্যান করা হয়।
  4. রোগীর রক্তের নমুনা পরীক্ষা করার জন্য পরীক্ষাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।
  5. চিকিৎসকরা পরীক্ষা এবং অ্যানজিওগ্রাফি রিপোর্টের উপর নির্ভর করে কিছু কেমোথেরাপির ওষুধের পরামর্শ দেন।

অস্ত্রোপচারের আগে প্রাক-শল্য সাবধানতা এবং সার্জারির পরে আরোগ্যলাভ।

  1. চিকিৎসক TACE পদ্ধতি পরিচালনা করার সময় এবং সার্জারির সাথে জড়িত সমস্ত ঝুঁকিগুলি সম্পর্কে রোগীকে অবহিত করে থাকেন।
  2. রোগীরা এখন যে ওষুধগুলি গ্রহণ করছেন সে সম্পর্কে চিকিৎসককে অবহিত করতে হবে।
  3. চিকিৎসকরা অ্যাসপিরিন বা কোনও অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি ওষুধ গ্রহণ বন্ধ করার পরামর্শ দেন।
  4. কিভাবে ইনজেকশনযোগ্য অ্যান্টিকোয়াগুল্যান্ট গ্রহণ বন্ধ করা যায় এবং রোগী যদি কোনরকমভাবে এর সাথে জড়িয়ে থাকেন তাহলে সেক্ষেত্রে চিকিৎসকরা পরামর্শ দিয়ে থাকেন।
  5. অস্ত্রোপচারের আগের দিন রাতে মদ্যপান করা বা কোন খাওয়ার খাওয়া উচিত নয় কারণ এতে জল থাকে।.
  6. অ্যানাস্থেসিয়া বা কোন পদার্থের থেকে রোগীর যদি অ্যালার্জি থাকে তাহলে চিকিৎসকরা অ্যালার্জির বিষয়ে বা অ্যালার্জি টেস্ট সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করবেন।
সার্জারির দিন
  1. অ্যান্টিবায়োটিক সরবরাহ করা
  2. ইন্ট্রাভেনাস ইনফিউশন শুরু করা
  3. অনুমতিপত্রে স্বাক্ষর এবং পরিবারের অনুমতি
অস্ত্রোপচারের পর
  1. ডাক্তার ব্যথা, বমি বমি ভাব এবং সম্পূর্ণ বিশ্রামের জন্য রোগীকে ওষুধ সরবরাহ করে থাকেন। এছাড়াও চিকিৎসকরা রোগীদের একটি সুস্থ এবং স্বাস্থ্যকর জীবনধারণ করার পরামর্শ দেন।
  2. সংক্রমণের সম্ভাবনাকে কমাতে অ্যান্টিবায়োটিকগুলি রোগীকে ৮ ঘন্টার ব্যবধানে গ্রহণ করতে হবে।
  3. অনেক নির্দেশিকা এবং নিয়মিত চেক-আপগুলির জন্য রোগীকে উপস্থিত থাকতে হয়, যেখানে চিকিৎসক নিয়মিত রোগীর অবস্থা পরীক্ষা করেন।
  4. এক মাস পরে, প্রয়োজনে টিউমারের আকার পরীক্ষা করতে একটি সিটি স্ক্যান করা হয়। TACE চিকিৎসা টিউমার ধ্বংস হয়ে যাওয়ার আগে পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

আপনার অবস্থা বা রোগের জন্য অনুসন্ধান করুন

এপিলেপসি বা মৃগীরোগ সংক্রান্ত কিছু জানার বিষয়

আমাদের হাসপাতালের সম্পর্কে আমাদের রোগীরা যা বলেন তা শুনুন

WhatsApp